হোম আজকের সেরা খবর ব্রিগেডের মঞ্চেই ছন্দপতন, কংগ্রেসকে উপেক্ষা আব্বাসের, দিলেন কড়া বার্তাও

ব্রিগেডের মঞ্চেই ছন্দপতন, কংগ্রেসকে উপেক্ষা আব্বাসের, দিলেন কড়া বার্তাও

ব্রিগেডের মঞ্চেই জোটের তাল কাটলো। সিপিএমের সঙ্গে ‘সুমধুর’ সম্পর্কের কথা বললেও, কংগ্রেসকে কড়া বার্তা দিলেন ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্টের নেতা আব্বাস সিদ্দিকি। তাঁর সাফ কথা, ‘বন্ধুত্বের পথ খোলা রয়েছে। কিন্তু কাউকে তোষণ নয়।’

আব্বাস যখন মঞ্চে ওঠেন, তখন তাঁর বক্তব্য রাখছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। আব্বাস সমর্থকদের তীব্র চিৎকার, উচ্ছ্বাস দেখে তাঁর বক্তব্য থামিয়ে নেমে যেতে চান অধীর। শেষ পর্যন্ত বিমান বসুর হস্তক্ষেপে অধীর ফের ভাষণ শুরু করেন। তবে আজকের ঘটনাক্রম বিরোধী জোটকে বড় প্রশ্নচিহ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিল।

আব্বাসের দলকে ৩০টি আসন ছেড়ে দিতে রাজি হয়েছে বামফ্রন্ট। কিন্তু কংগ্রেস এখনও পর্যন্ত আসন ছাড়তে না চাওয়ায় জট তৈরি হয়েছে। আব্বাস বলেন, “বামেরা আমাদের দাবি মেনে ৩০টি আসন ছেড়েছে। তাই যেখানেই বাম-শরিকরা প্রার্থী দেবেন, রক্ত দিয়ে তাঁদের আমরা জেতাব। এবারের ভোটে মমতাকে শূন্য করে ছাড়ব। বিজেপি এবং তাদের ‘বি’ টিম মমতাকে উৎখাত করব।”

সেইসঙকংগ্রেসের নাম নিয়ে বলেন, “যাঁরা ভাবছেন, কেন কংগ্রেসের নাম নিচ্ছি না, তাঁদের বলছি, ভিক্ষা চাই না। আমরা অংশীদারি করতে এসেছি, তোষণ করতে নয়। হক বুঝে নিতে হবে।” তাঁর বক্তৃতার শুরু থেকেই তৃণমূল-বিজেপিকে চড়া সুরে নিশানা করেন আব্বাস। ভিড়ে ঠাসা ব্রিগেডে স্লোগান তোলেন, “ইয়ে তো সির্ফ ঝাঁকি হ্যায়, সরকার গিরনা আভি বাকি হ্যায়।”

অধীরের ভাষণের মাঝে আব্বাস মঞ্চে পা রাখতেই ‘ভাইজান, আব্বাস’ আওয়াজ ওঠে। আব্বাসকে স্বাগত জানাতে এগিয়ে যান সিপিএম পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম। এরপর স্বাগত জানান বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুও। মঞ্চে থাকা অন্য নেতারাও উঠে দাঁড়িয়ে আব্বাসকে স্বাগত জানান। সবার সঙ্গে পাল্টা সৌজন্য বিনিময় করলেও, কার্যত উপেক্ষা করেন তিনি।

আব্বাস অনুগামীদের চিৎকারের মধ্যেই তাঁর ভাষণ বন্ধ করে দেন অধীর। ডায়াস থেকে নেমে যেতে চাইলে, একে একে বিমান, সূর্যকান্ত, সেলিমরা তাঁকে আটকানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু অনড় থাকেন অধীর। বক্তৃতা করার সময় যে মাস্ক খুলে নিয়েছিলেন, সেটি আবার তাঁকে মুখে পরে নিতে দেখা যায়। এসময় অধীরের কানের কাছে এসে কিছু বলতে দেখা যায় আব্বাসকে। তারপর ফের বক্তৃতা শুরু করেন অধীর। জোটের পক্ষে জোরদার সওয়াল করেন তিনি।

তবে ব্রিগেডের মঞ্চে বারবার চোখে পড়েছে কংগ্রেস নেতৃত্ব ও আব্বাসের মধ্যে দূরত্ব। জোটের নেতাদের চোখেমুখেও এই অস্বস্তি ধরা পড়েছে। মঞ্চের একদিকে সূর্যকান্তের পাশে বসেছিলেন অধীর। অন্যদিকে বসে থাকতে দেখা যায় আব্বাস এবং অন্য নেতাদের।

আমাদের পাশে থাকুন

দেশে নির্ভীক, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতা আজ প্রশ্নের মুখে। বিপন্ন সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা। আমজনতাই আমাদের শক্তি। আমরা চাই, আপনিও আমাদের পাশে থাকুন। আপনার সামান্য অনুদান আমাদের চলার পথে সাহস জোগাতে পারে।

আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক 100, 200, 500, 1000

E-mail : kolkatanewstoday@gmail.com
9830940425, 8371931003

সবাই যা পড়ছেন

বিশিষ্ট সাংবাদিক কমল ভট্টাচার্য প্রয়াত

বিশিষ্ট সাংবাদিক কমল ভট্টাচার্য শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। রবিবার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। তিনি...

সোমবার ৪৩ মন্ত্রীর শপথ, পূর্ণমন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, রথীন ঘোষ, বঙ্কিম হাজরা

সোমবার শপথ নিতে চলেছে রাজ্যের নয়া মন্ত্রিসভা। শপথ নেবেন ৪৩ জন মন্ত্রী। এর মধ্যে পূর্ণ মন্ত্রী হচ্ছেন ২৪ জন। ১৯ জন প্রতিমন্ত্রীর...

নিজের প্রিয় ভবানীপুরেই কি ফের প্রার্থী হচ্ছেন মমতা?

ফের কি ভবানীপুর কেন্দ্র থেকেই ভোটে লড়তে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? তৃণমূল সূত্রে খবর, অমিত মিত্রকে আবার অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। সেক্ষেত্রে খড়দহে...

শান্তিনিকেতনে গোশালা, উদ্যোগী ছিলেন স্বয়ং কবিগুরু

ডা. পূর্ণেন্দুবিকাশ সরকার শান্তিনিকেতনে গোশালা? হ্যাঁ, ১৯১০ সালে রবীন্দ্রনাথের উৎসাহে সন্তোষচন্দ্র মজুমদার শান্তিনিকেতনে একটি গোশালার পত্তন করেছিলেন। বন্ধু শ্রীশচন্দ্রের পুত্র সন্তোষচন্দ্রকে রবীন্দ্রনাথ ১৯০৬...

“করোনা বিপর্যয়, মোদীর ভূমিকা ক্ষমার অযোগ্য”, বলল ল্যানসেট

করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থতা নিয়ে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এবার আন্তর্জাতিক মহলেও প্রবল সমালোচনার মুখে পড়লেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।