হোমঅন্যান্যJagannath : জগন্নাথের নব কলেবর কী এবং কেন হয়, জানেন কি?

Jagannath : জগন্নাথের নব কলেবর কী এবং কেন হয়, জানেন কি?

Jagannath : জগন্নাথের নব কলেবর কী এবং কেন হয়, জানেন কি?

সঞ্জয় বসাক : জগন্নাথের নব কলেবর কেন হয় এবং এর বিশেষত্ব কী, সাধারণ ভক্তের মনে এই প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক। যে বছর জোড়া আষাঢ় পড়ে, সেই বছরটি শ্রীজগন্নাথ, বলভদ্র ও সুভদ্রার নব কলেবর হয়। নব কলেবর অর্থাৎ প্রভু জগন্নাথ, বলভদ্র, দেবী সুভদ্রা এবং সুদর্শনের নতুন বিগ্রহ তৈরির পরে ব্রহ্ম পরিবর্তন, নবযৌবন দর্শন এবং রথ যাত্রা উৎসব।

বিগ্রহ তৈরির জন্য দারু অন্বেষণ , কাকটপুরের মা মঙ্গলার স্বপ্নাদেশে যা বনযাগ যাত্রা নামে পরিচিত। এই যাত্রা থেকে নব কলেবরের প্রস্তুতি পর্ব শুরু হয়।

নব-কলেবর সম্পর্কে কিছু তথ্য :
যে বছর জোড়া আষাঢ় পড়ে সেই বছরটি শ্রী জগন্নাথ, বলভদ্র ও দেবী সুভদ্রার নব কলেবর হয়। সাধারণত জোড়া আষাঢ় ৮, ১২ ,১৬ কিংবা ১৯ বছর পর পড়ে। বিংশ শতাব্দীতে নব কলেবর যাত্রা প্রথমে ১৯১২, ১৯৩১, ১৯৫০, ১৯৬৯, ১৯৭৭ এবং ১৯৯৬ সালে হয়েছিল। ২০১৫ সালে নব কলেবর যাত্রা ১৯ বছর বাদে পড়েছিল

বনযাগ যাত্রা :
পুরীর গজপতি রাজা দিব্য সিংহ দেব রাজগুরুকে পৈতে, বস্ত্র এবং সুপুরি প্রদান করে বনযাগ যাত্রার জন্য আদেশ দেন। এই পরম্পরাকে গজপতি “রাজার আজ্ঞা” বলা হয়। সেই থেকে বনযাগ যাত্রার সূচনা হয়।

নব কলেবরের জন্য তিন ঠাকুরের জন্য যে গাছ চিহ্নিত করা হয়, তাতে নিম্নলিখিত শর্ত মানা বাধ্যতামূলক।

১. গাছটি অবশ্যই নিম গাছ হতে হবে।
২. গাছের কাছাকাছি উই ঢিপি, নদী, শ্মশান কিংবা পুকুর থাকা অনিবার্য। বৃক্ষের কাছে বেল গাছ, তুলসী গাছ থাকা প্রয়োজন।
৩. বৃক্ষে কোন পাখির বাসা থাকবে না, উই ঢিপির কাছে গোখরো সাপকে গাছটিকে পাহারা দিতে দেখা যাবে।
৪. গাছের কোন অংশ কীট পতঙ্গের আছড় বা বজ্রপাতের চিহ্ন থাকবে না। আগে কোন ডাল কাটা থাকবে না। কোনওরকম খুঁত থাকা চলবে না।
৫. সেই গাছে শঙ্খ, চক্র, গদা, পদ্ম চিহ্ন থাকা প্রয়োজন।
৬. গাছটি ১২ ফুট লম্বা, সোজা এবং মোটা হওয়া প্রয়োজন যাতে অনায়াসে বিশ্বকর্মার দ্বারা বিগ্রহ নির্মাণ কর্ম সম্পন্ন করা যায়।

এই সব বৈশিষ্ট্য দেখে অন্বেষণকারী দল পবিত্র দারু নির্বাচন করেন।

সঞ্জয় বসাক, জগন্নাথ ভক্ত

spot_img
spot_img
spot_img

সবাই যা পড়ছেন

spot_img