হোমঅন্যান্যঅতিমারীতে মানুষের পাশে 'দ্য বেঙ্গল' ও 'রাহত'

অতিমারীতে মানুষের পাশে ‘দ্য বেঙ্গল’ ও ‘রাহত’

অতিমারীতে মানুষের পাশে ‘দ্য বেঙ্গল’ ও ‘রাহত’

করোনার থাবা মানুষের জীবনকে বিপর্যস্ত করে দিয়েছে। দ্বিতীয় ঢেউয়ে আরও দিশেহারা অবস্থা। এই দুঃসময়ে আর্ত পীড়িতদের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এসেছেন বাংলার বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবিদের নিয়ে তৈরি সংগঠন ‘দ্য বেঙ্গলে’র সদস্যরা। দুঃস্থ মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রীর ব্যবস্থা করেছেন তাঁরা। দ্য বেঙ্গলের এই প্রয়াসে সামিল হয়েছে প্রভা খৈতান ফাউন্ডেশনের তৈরি সংস্থা ‘রাহত’।

এই উদ্যোগে নাগরিকদের কাছে অর্থ সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে দুই সংস্থা। সংগৃহীত অর্থে করোনা আক্রান্তদের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ, অক্সিমিটার, অক্সিজেন সিলিন্ডার, অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর এমনকী হাসপাতালে শয্যারও ব্যবস্থা করা হবে।

অর্থ সংগ্রহের জন্য তৈরি করা হয়েছে ‘কোভিড রিলিফ ব্যাঙ্ক’। দ্য বেঙ্গলের এই উদ্যোগের বিশেষত্ব হল, কোনো ইচ্ছুক ব্যক্তি অর্থ দান করতে চাইলে, তাঁকে দ্য বেঙ্গলের সদস্যরা যোগাযোগ করিয়ে দিচ্ছেন কোভিভ নিয়ন্ত্রণে যাঁরা ত্রাণসামগ্রী সরবরাহ করছেন, তাঁদের সঙ্গে।

হসপিটালে বেডের ব্যবস্থার পাশাপাশি ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় ওষুধ, অক্সিমিটার, অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর পৌঁছে দেওয়া হয়েছে প্রভাস ফাউন্ডেশন, আইএইচএ, O2কু, শবর ক্যালকাটা ফাউন্ডেশন, আর্টিস্ট ফোরাম, ৮৭ ওয়ার্ড সেফ হোম সহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কাছে।

দ্য বেঙ্গলের পক্ষে এই কর্মকাণ্ডের দায়িত্বে রয়েছেন এষা দত্ত, নীলাঞ্জনা সেনগুপ্ত এবং স্বরূপ দত্ত।
এষা দত্ত বলেন, “মহামারী রুখতে যাঁরা সরাসরি ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাজ করছেন, তাঁদেরকে একত্রিত করে এই কাজ আরও সুসংহতভাবে করার চেষ্টা চলছে।”

দ্য বেঙ্গলের প্রেসিডেন্ট বিশিষ্ট চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ বলেন, “গত শতাব্দীতে প্লেগ মহামারী রুখতে এগিয়ে এসেছিলেন, ভগিনী নিবেদিতা, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের মত বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে পশ্চিমবঙ্গ সহ সারা দেশ বিপর্যস্ত। এই কঠিন পরিস্থিতিতেও কিছু নিঃস্বার্থ মানুষ অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন।”

দ্য বেঙ্গলের সাম্মানিক সচিব সন্দীপ ভূতোড়িয়া বলেন, “মানবজাতির এই সঙ্কটে মানুষের সাহায্যই সবথেকে বেশী জরুরি।”

spot_img
spot_img
spot_img

সবাই যা পড়ছেন

spot_img